পটিয়ায় স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে যুবক গ্রেফতার

প্রকাশ: ০৩ অক্টোবর ২০১৯   

পটিয়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি

চট্টগ্রামের পটিয়ায় অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রী (১৫) ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করা হয়েছে। 

এ ঘটনায় অভিযুক্ত লোকমান হাকিমকে (৩০) পুলিশে দিয়েছে এলাকাবাসী। লোকমান উপজেলার কোলাগাঁও ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের মুন্সি মির্জা বাড়ির মৃত মো. মুছার ছেলে ও ওয়েস্টার্ন মেরিন নামের একটি শিল্প প্রতিষ্ঠানের শ্রমিক। 

ধর্ষণের ঘটনায় বৃহস্পতিবার ওই ছাত্রীর পিতা বাদী হয়ে পটিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, উপজেলার হাবিলাসদ্বীপ ইউনিয়নের অষ্টম শ্রেণির ওই ছাত্রী বুধবার সকালে এক বান্ধবীর বাড়িতে স্কুলব্যাগ রেখে পাঁচুরিয়া বাজারে কেনাকাটা করতে যায়। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে স্কুলব্যাগটি আনার জন্য  আবারও বান্ধবীর বাড়িতে যায় সে। সেখানে তার বান্ধবীর বড় বোন জানান, তার  ভাই নুরুল হাকিম ব্যাগটি ওই ছাত্রীর বাড়িতে পৌঁছে দেওয়ার জন্য নিয়ে গেছে। এরপর ওই স্কুলছাত্রী বাড়ির উদ্দেশ্যে সেখান থেকে বেরিয়ে যায়। বাড়ির কাছাকাছি পৌঁছলে নুরুল হাকিম সাইকেলযোগে গিয়ে জানায় যে, স্কুলব্যাগটি তার কাছে আছে। এরপর ব্যাগ দেওয়া কথা বলে তাকে কোলাগাঁও ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের শীল পাড়া এলাকার সেন বাড়ির পুকুর পাড়ে জঙ্গলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে। এসময় ছাত্রীটির চিৎকার শুনে স্থানীয়রা এগিয়ে গিয়ে লোকমানকে আটকে পুলিশে দেয়।

পটিয়া থানার ওসি বোরহান উদ্দিন জানান, এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। অভিযুক্ত লোকমান হাকিমকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

এদিকে লোকমান হাকিম অভিযোগ করে বলেন, আমি ধর্ষণ করিনি। যারা আমাকে ধরে পুলিশে দিয়েছে তারাই ধর্ষণ করেছে। আমি গরীব ও অসহায় বলে আমাকে ফাঁসানো হচ্ছে।